এ টি এম শামসুজ্জামানের শেষ ইচ্ছা…

single-news-image

না ফেরার দেশে চলে গেছেন বরেণ্য অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান। মৃত্যুর আগে তিনি বলে গেছেন, ‘তার যেন একাধিক জানাজা না হয় এবং নারিন্দার পীর সাহেব যেন তার জানাজা নামাজ পড়ান।’

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানান তার জামাতা ইমতিয়াজ আহমেদ রাশেদ।

তিনি বলেন, ‘বাবা মৃত্যুর আগে বলেছেন, শুধু একটি জানাজা পড়াতে। তিনি নারিন্দার পীর সাহেবের মুরিদ ছিলেন। তাই তার শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী নারিন্দার পীর সাহেব তার গোসলের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবেন। বাবা বলেছেন- তার মৃত্যুর পর গোসল, জানাজা ও দাফন নারিন্দার পীর সাহেবের হাতে যেন হয়। তার শেষ ইচ্ছে ছিল, সূত্রাপুরে জানাজা ও দাফন করা হবে জুরাইন কবরস্থানে।’

এ টি এম শামসুজ্জামান শনিবার সকাল ৯টার দিকে সূত্রাপুরের নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর।

এর আগে গত বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে পুরান ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল এ টি এম শামসুজ্জামানকে। তার অক্সিজেন লেভেল কমে গিয়েছিল। হাসপাতালে ডা. আতাউর রহমান খানের তত্ত্বাবধানে ছিলেন জনপ্রিয় এ অভিনেতা।

১৯৬৫ সালে অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্র আগমন হয় এ টি এম শামসুজ্জামানের। ১৯৭৬ সালে চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ সিনেমায় খল চরিত্রে অভিনয় করে আলোচনায় আসেন তিনি। প্রবীণ এ অভিনেতা আজও দর্শকের কাছে নন্দিত। কালের কন্ঠ