যাচাই-বাছাইয়ের নামে মুক্তিযোদ্ধাদের হয়রানি বন্ধের আহ্বান

single-news-image

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় ব্যবহৃত বাংলাদেশের পতাকা। ছবি: উইকি

বার বার যাচাই-বাছাইয়ের নামে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের হয়রানি ও বিতর্কিত করার অপতৎপরতা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধারা। মঙ্গলবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত একদল বীর  মুক্তিযোদ্ধার সমাবেশ থেকে এ দাবি জানানো হয়।

মুক্তিযোদ্ধা ঐক্য মঞ্চের আহ্বানে আয়োজিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন মজুমদার। বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা জহিরউদ্দিন জালাল (বিচ্চু জালাল), মুজিবুর রহমান, আলতাফ হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই করতে হলে যুদ্ধকালীন কমান্ডারদের মাধ্যমেই করতে হবে। কিন্তু তা না করে রাজনৈতিক নেতা কিংবা সরকারি কর্মকর্তাদের দিয়ে যাচাই-বাছাইয়ের যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে তাতে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারা বাদ পড়ে যাবেন আবার অমুক্তিযোদ্ধারাও মুক্তিযোদ্ধা হয়ে যাবে। তারা অবিলম্বে এটা বন্ধ করার দাবি জানান।

বক্তারা আরো অভিযোগ করেন, যাচাই-বাছাইয়ের জন্য যে তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে তাতে অনেক খেতাবধারী বিখ্যাত মুক্তিযোদ্ধারাও রয়েছেন। তাদেরকে বিতর্কিত করার জন্যই এই অপরতৎপরতা চালানো হয়েছে। এই ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে।

এসব দাবি মানা না হলে আগামী ৩০ জানুয়ারি যাচাই-বাছাইয়ের দিন সংশ্লিষ্ট স্থানে অবস্থান ধর্মঘট পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়। সমাবেশ শেষে মুক্তিযোদ্ধারা বিতর্কিত ভূমিকার জন্য জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের মহাপরিচালকের কুশপুত্তলিকা দাহ করেন। কালের কন্ঠ