আবার ব্যাপক সংক্রমণের ঝুঁকিতে চিন

single-news-image

চিন সরকারের মেডিকেল উপদেষ্টা ডা. ঝং ন্যানশান। ছবি: সংগৃহীত

ইমিউনিটির অভাবে চিনে দ্বিতীয় দফায় ব্যাপক আকারে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন দেশটির শীর্ষ স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। দ্বিতীয় ধাপে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হবে চিন।

চিন সরকারের মেডিকেল উপদেষ্টা ডা. ঝং ন্যানশান এমনটা জানিয়েছেন বলে বুধবার খবর প্রকাশ করেছে মার্কিন সংবাদভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএন।

পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও দ্বিতীয় সংক্রমণের ব্যাপারে সতর্ক করে ডা. ঝং ন্যানশান বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে সংক্রমণ কমে এসেছে বলে এখনই চিন কর্তৃপক্ষের আত্মতুষ্টিতে ভোগা উচিত হবে না।’

তিনি বলেন, ‘চিনে নতুন করোনা রোগীদের মধ্যে অধিকাংশই ইমিউনিটির অভাবে আক্রান্ত হয়েছেন। আমরা এখন বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছি। এই মুহূর্তে পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যা চলছে, চিনের পরিস্থিতি তার চেয়ে কম ভয়াবহ না।’

ভাইরাসের উৎপত্তি স্থান উহানে সংক্রমণের হার কমে আসলে ৭৬ দিন পর লকডাউন তুলে নেওয়া হয়। সেখানকার জনগণ স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে শুরু করেছে। সম্প্রতি কয়েকটি স্কুল ও কারখানাও খুলে দেওয়া হয়েছে। এতেই দ্বিতীয় ধাপে সংক্রমণ মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে চিনে আবারও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। বিশেষ করে উহান, উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় হেইলংজিয়াং প্রদেশ এবং জিলিনে নতুন করে করোনার সংক্রমণ শুরু হয়েছে। আমাদের সময়