টরোন্টোতে অনুষ্ঠিত হলো সপ্তাহব্যাপী ইসলামের ইতিহাস ও ঐতিহ্য উদযাপন অনুষ্ঠান

single-news-image

ঢাকা ডন ডেস্ক:  নজরুল  ফাউন্ডেশন, টরোন্টো, ক্যানেডা ও বাংলাদেশ সেন্টার অ্যান্ড কমিনিউটি সার্ভিসেস-এর যৌথ উদ্যোগে  টরোন্টোর ড্যানফোর্থ এলাকায় অবস্থিত বাংলাদেশ সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল সপ্তাহব্যাপী ইসলামের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য উদযাপন অনুষ্ঠান ।

উল্লেখ্য যে, ক্যানেডার ফেডারেল সরকার এবং অন্টারিও’র প্রাদেশিক সরকার অক্টোবর মাসকে ইসলামের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য উদযাপনের মাস হিসেবে সরকারি ঘোষণা দেয়ার পর থেকে প্রতিবছর সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে ক্যানেডাজুড়ে  ইসলামের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য তুলে ধরে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয় ইসলামি ঐতিহ্য মাস।

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করছে খুদে হাফিজ জাবিরুল হক

এরই ধারাবাহিকতায় সপ্তাহব্যাপী ইসলামের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য বিষয়ে ২৬ অক্টোবর শনিবার বিকেল ৫:৩০ মিনিটে বাংলাদেশ সেন্টারে আয়োজিত হয় আলোচনাসভা,মতবিনিময় এবং ইসলামের ইতিহাস ও ঐতিহ্য বিষয়ে উপস্থাপনা।

বাংলাদেশ সেন্টারের প্রেসিডেন্ট হাসিনা কাদের এবং নজরুল ফাউন্ডেশনের পরিচালক মো. নুরুল ইসলাম অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন ।

হাসিনা কাদেরের স্বাগত ভাষণের পর অধ্যাপিকা শারমিন সুলতানা এবং রুবাইয়াৎ আমীনের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয় ।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রকৌশলী সিরাজ ইকবাল ইসলামের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য উদযাপন অনুষ্ঠানকে স্বাগত জানিয়ে ইংরেজিতে স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন ।

অনুষ্ঠানে ইসলামের স্বর্ণযুগের মুসলিম বিজ্ঞানীদের আবিষ্কার বিশ্ব সভ্যতায় অসাধারণ অবদানের প্রেক্ষাপট  প্রদর্শিত হয় ৩০ মিনিটের একটি ডকিউমেন্টারি উপস্থাপনার মাধ্যমে।

বক্তারা ইসলামের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস এবং ঐতিহ্যের  বিভিন্ন দিক নিয়ে গবেষণামূলক বক্তৃতা  করেন । অনুষ্ঠানে মূল্যবান বক্তব্য রাখেন−অধ্যাপিকা শারমিন সুলতানা, মানব উন্নয়নমূলক গবেষক রিনা সেনগুপ্ত, হোপ ইউনাইটেড চার্চের খ্রিষ্ট ধর্মবিষয়ক স্কলার ব্রায়ান স্টিভেনস, প্রকৌশলী শাহাদত হোসেন, রিমা বার্নস ম্যাকগাউন এমপিপি, ড. নাসিমা আখতার পিএইচডি, শিক্ষাবিষয়ক গবেষক মোসাম্মাৎবদরুন্নেসা, বিশিষ্ট সমাজকর্মী আফরোজা বেগম,  নিবেদিত সমাজকর্মী ইসমাত আরা, আবরার হাবিব, ফাইরোজ ফাতিমা মাঈশা, ড. শিবলি নোমানি, ড. প্রশান্ত সরকার, ড এ এইচ প্যাটেল, প্রকৌশলী হিসাম মালিক, ড. আনার দিলিরা ।

সব বক্তাই স্লাইড প্রদর্শন ও পাওয়ারপয়েন্ট-এর মাধ্যমে তাঁদের বক্তব্য দর্শক-শ্রোতাদের কাছে বোধগম্য ও আকর্ষণীয় করে তোলেন । অনুষ্ঠানটির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য ছিল কলেজ-ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত নতুন প্রজন্মের ছাত্রছাত্রীদের গবেষণামূলক আলোচনায় অংশগ্রহণ, এবং আলোচনায় অংশ গ্রহণকারীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক মহিলাদের উপস্থিতি ।

দর্শক-শ্রোতাদের উদ্দীপনামুখর পরিবেশে, ঠাঁসবুনোট হলে আমন্ত্রিত বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ডলি বেগম এমপিপি । ইসলামিক হিস্ট্রি  অ্যান্ড হেরিটেজকে  ধর্ম-গোত্র নির্বিশেষে সবার কাছে তুলে ধরার জন্য এজাতীয় অনুষ্ঠান আগামীতে প্রত্যেক শহরে অনুষ্ঠিত করার আশা ব্যক্ত করে তিনি তাঁর সবরকম সাহায্য-সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন ।

রাত ৯:৩০ মিনিটে জনাব মঈন চৌধুরী অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করে সকলকে নৈশভোজে অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানান ।

পরদিন ২৭ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ছিল  ইসলামের ইতিহাস এবং ঐতিহ্যকে তুলে ধরে চিত্র-প্রদর্শনী । প্রতিদিনই অনেক দর্শক চিত্র প্রদর্শনীতে উপস্থিত হন।

অনুষ্ঠান আয়োজনের সার্বিক পরিকল্পনা এবং ব্যবস্থাপনায় ছিলেন মো. নুরুল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম এফসিএ, প্রকৌশলী মাহবুব আলম, সিরাজুল ইসলাম কাজী এলএলবি এবং প্রকৌশলী সিরাজ ইকবাল, প্রমুখ ।

আয়োজকদের কয়েকজন