যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ভয়ংকর সিরিয়াল কিলার:

single-news-image

৯৩ জনকে খুন করেছেন স্যামুয়েল লিটল

স্যামুয়েল লিটলঃ বহু বছর ধরে অজানা ছিল তার অপরাধের রেকর্ড ছবি: বিবিসি

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দী এক সাজাপ্রাপ্ত খুনি এ পর্যন্ত ৯৩টি খুনের কথা স্বীকার করার পর এফবিআই তাকে দেশটির ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়ংকর সিরিয়াল খুনি বলে নিশ্চিত করেছে।

স্যামুয়েল লিটল নামের ৭৯ বছর বয়সী এই ব্যক্তিকে পুলিশ অন্তত ৫০টি খুনের ঘটনায় জড়িত বলে দেখতে পেয়েছে। এসব খুনের ঘটনা ঘটেছে ১৯৭০ সাল হতে ২০০৫ সালের মধ্যে।

তিন মহিলাকে খুনের দায়ে ২০১২ সাল হতে তিনি কারাগারে সাজা খাটছেন।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, স্যামুয়েল লিটল হামলার জন্য বেছে নিতেন দুর্বল প্রকৃতির লোকদের, বিশেষ করে মেয়েদের। এদের বেশিরভাগই হয় যৌনকর্মী অথবা মাদকাসক্ত।

যুক্তরাষ্ট্রের যেসব জায়গায় খুনের কথা স্বীকারে করেছেন স্যামুয়েল লিটল
যুক্তরাষ্ট্রের যেসব জায়গায় খুনের কথা স্বীকারে করেছেন স্যামুয়েল লিটল

স্যামুয়েল লিটল ছিলেন একজন পেশাদার বক্সার। তিনি প্রথমে ঘুষি মেরে কাউকে কাবু করতেন। এরপর শ্বাসরোধ করে হত্যা করতেন। এর ফলে তাদেরকে যে খুন করা হয়েছে,সেটা প্রথম দেখায় বোঝা যেত না।

এরকম অনেক খুনের ঘটনা এফবিআই কখনো তদন্ত করেই দেখেনি। অনেক হত্যার ঘটনাকে দুর্ঘটনা বা অতিরিক্ত মাদক নেয়ার ফল বলে খারিজ করে দেয়া হয়েছিল। অনেক মৃতদেহ তো খুঁজেই পাওয়া যায়নি।

সোমবার এক বিবৃতিতে এফবিআই জানিয়েছে, স্যামুয়েল লিটল যেসব খুনের কথা স্বীকার করেছেন, সেগুলো বিশ্বাসযোগ্য বলেই মনে হচ্ছে।

এফবিআই এর একজন বিশ্লেষক ক্রিস্টি পালাজ্জো বলেন, “অনেক বছর ধরে স্যামুয়েলের ধারণা ছিল সে কখনো ধরা পড়বে না। কারণ তার খুনের শিকার যারা হচ্ছিল, তাদের খবর কেউ রাখছিল না।”

তিনি বলেন, যদিও স্যামুয়েল জেল খাটছেন, তারপরও এই প্রত্যেকটি খুনের ঘটনাতেই তার বিচার করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

২০১২ সালে কেনটাকিতে একটি মাদকের মামলায় স্যামুয়েল লিটলকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর তাকে ক্যালিফোর্নিয়ার পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। তার বিরুদ্ধে আগে থেকেই সশস্ত্র ডাকাতি থেকে শুরু করে ধর্ষণ – এরকম বহু ধরণের অপরাধের অভিযোগ ছিল।

পরে ডিএনএ পরীক্ষায় তাকে তিনটি খুনের সঙ্গে সম্পর্কিত দেখা যায়। লস এঞ্জেলেসে ১৯৮৭ হতে ১৯৮৯ সাল এসব খুনের ঘটনা ঘটে। বিবিসি