নরওয়ের মসজিদে হামলা সন্ত্রাসী কাজ হতে পারে-বলছে দেশটির পুলিশ

single-news-image

এই মসজিদে হামলা হয়েছে

নরওয়ের পুলিশ বলছে, রাজধানি অসলো-এর মসজিদে যে হামলা হয়েছে সেটিকে সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে তদন্ত করা হচ্ছে।

অসলো শহরের প্রান্তে আল-নূর ইসলামিক সেন্টারে শনিবার এক বন্দুকধারী হামলা চালায়।

মসজিদের এক ব্যক্তি সে বন্দুকধারীকে ধরতে সক্ষম হয়। সন্দেহভাজন সে হামলাকারীকে পরে আটক করেছে পুলিশ।

সেই বন্দুকধারীর বিরুদ্ধে পুলিশ, হত্যার অভিযোগ এনেছে। কারণ, তার ১৭ বছর বয়সী সৎ বোনকে ভিন্ন আরেকটি জায়গায় মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

বন্দুকধারীর পরিচয় কী?

সন্দেহভাজন সে ব্যক্তির নাম এখনো প্রকাশ করা হয়নি। তবে পুলিশ জানিয়েছে, সে নরওয়ের বংশোদ্ভূত একজন শ্বেতাঙ্গ ব্যক্তি। তার বয়স আনুমানিক ২০ বছর।

মসজিদটি যে এলাকায় অবস্থিত বন্দুকধারী ব্যক্তি সে এলাকারই বাসিন্দা। পুলিশ বলছে, সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে তারা আগে থেকেই চিনতো, কিন্তু তার কোন ক্রিমিনাল রেকর্ড ছিল না।

বন্দুকধারী ব্যক্তি উগ্র ডানপন্থায় বিশ্বাস করতেন এবং তিনি ছিলেন অভিবাসন বিরোধী।

নরওয়ের সংবাদমাধ্যম বলছে, সন্দেহভাজন এই ব্যক্তি হামলার আগে একটি অনলাইন ফোরামে তার মন্তব্য প্রকাশ করেছিলেন। সেখানে তিনি ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে হামলার সাথে সম্পৃক্ত বন্দুকধারীর প্রশংসা করেছেন। বিবিসি