জাতীয় বাজেট: মাথাপিছু আয় হবে ২১৭৩ ডলার, বাজেটে আশাবাদ

single-news-image

২০৪১ সালের মধ্যে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশের স্তর পেরিয়ে একটি শান্তিপূর্ণ, সুখী উন্নত- সমৃদ্ধ সোনর বাংলা গড়ার লক্ষ্যকে সামনে রেখে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব পেশ করা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী আ.হ.ম মুস্তফা কামাল আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ : সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের’ শ্লোগান সম্বলিত এ বাজেট পেশ করেন।

বাজেট পেশের এক পর্যায়ে অসুস্থ অর্থমন্ত্রী বক্তৃতা দিতে অসুবিধা বোধ করায় সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার পক্ষে বাজেট বক্তৃতা উপস্থাপন করেন।

প্রস্তাবিত বাজেটে মোট রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা, এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সূত্রে আয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬শ’ কোটি টাকা, এছাড়া, এনবিআর বহির্ভূত সূত্র থেকে কর রাজস্ব ধরা হয়েছে ১৪ হাজার ৫শ’ কোটি টাকা। কর বহির্ভুত খাত থেকে রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ৩৭ হাজার ৭১০ কোটি টাকা।


মাথাপিছু আয় হবে ২১৭৩ ডলার

আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় হবে ২,১৭৩ ডলার। বর্তমানে বাংলাদেশের মানুষের গড় মাথাপিছু আয় ১ হাজার ৯০৯ ডলারে পৌঁছেছে। তবে নতুন অর্থবছরে এই আয় বেড়ে ২ হাজার ১৭৩ ডলারে পৌঁছাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদে আগামী অর্থবছরের বাজেট উত্থাপনের সময় বাজেট বক্তৃতায় এসব তথ্য জানানো হয়। বেলা ৩টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। শুরুতে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বাজেট প্রস্তাব পাঠ করলেও পরে তিনি অসুস্থ বোধ করায় তার পক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাজেট পড়ে শোনান।

বক্তৃতায় বলা হয়, ‘যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ প্রফেসর হরিস বি শেনারি ১৯৭৩ সালে বলেছিলেন বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ৯০০ ডলারে পৌঁছাতে ১২৫ বছর সময় লাগবে। কিন্তু তার সেই বক্তব্য মিথ্যা প্রমাণিত করে মাত্র ৪০ বছরের মাথায় বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ৯২৮ ডলারে উন্নীত হয়েছে। যা আমাদের দেশের জন্য একটি বড় অর্জন।’

গত অর্থবছরে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ছিল ১ হাজার ৯০৫ ডলার। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ছিল ১৭৫১ ডলার।

পুরো বাজেট পড়তে এখানে ক্লিক করুন…https://www.kalerkantho.com/banner/budget_2019_20.pdf

সূত্র: কালের কন্ঠ