অফিসে প্রবেশে কর্তৃপক্ষের বাধা প্রদানে সংবাদ কর্মীদের মামলা: আদালতে হাজির হননি একুশে টিভি কর্তৃপক্ষের কেউ

single-news-image

ঢাকা ডন ডেস্ক: অফিসে ঢুকতে বাধা দেয়ার অভিযোগে একুশে টেলিভিশনের পাঁচ কর্মীর দায়ের করা মামলায় আদালতে হাজির হননি  একুশে টেলিভিশন কর্তৃপক্ষের কেউ।


ঢাকার শ্রম আদালত-৩ এ মামলাগুলো করেছেন সিনিয়র ভিডিও এডিটর আব্দুস সালাম, ভিডিও এডিটর সিদ্দিকুর রহমান, মঞ্জুর রহমান, সিনিয়র ক্যামেরাম্যান এম কে রাহুল ও প্রশাসন বিভাগের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ শামীম আহমেদ। প্রতিটি মামলাতেই বিবাদী করা হয়েছে একুশে টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ আলী শিকদার, হেড অব এডমিন অ্যান্ড সিকিউরিটি মেজর (অব.) নাসিম হোসেন ও কোম্পানি সচিব আতিকুর রহমানকে।

২৮ মে মঙ্গলবার ছিল হাজিরার প্রথম দিন। বিবাদী পক্ষ বা তাদের কোনো আইনজীবী হাজির না হওয়ায়, বিচারক রহিবুল ইসলাম ২৯ আগস্ট মামলার পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করেন। মামলার বাদী আব্দুস সালাম ও মঞ্জুর রহমান জানান, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে তাদেরকে অন্যায়ভাবে অফিসে ঢুকতে বাধা দেয়া হয়। ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে দুই দফা চিঠি দিয়ে প্রতিকার চাইলেও তিনি কোনো ব্যবস্থা নেননি। প্রতিপক্ষের লোক আখ্যা দিয়ে কর্তৃপক্ষ এ আচরণ করেছে। বাধ্য হয়ে তারা ঢাকার শ্রম আদালতের দারস্থ হয়েছেন।

অফিসে ঢুকতে বাধা, অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুতি এবং পাওনা বুঝিয়ে না দেয়ার অভিযোগে ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ আলী শিকদার, হেড অব এডমিন অ্যান্ড সিকিউরিটি মেজর (অব.) নাসিম হোসেন ও কোম্পানি সচিব আতিকুর রহমানের নামে মামলা করেছেন প্রতিষ্ঠানটির আরও নয় সংবাদকর্মী। তারা হলেন–বার্তা সম্পাদক জাকির হোসেন, যুগ্মবার্তা সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন, সিনিয়র রিপোর্টার সাজেদ রোমেল, মিরাজ মিজু, রকিব মানিক, স্টাফ রিপোর্টার তাপশী রাবেয়া, রাশেদ আপন, সহযোগী প্রযোজক জিল্লুর রহমান ও সিনিয়র নিউজরুম কোঅর্ডিনেটর কামরুল ভুঁইয়া।

জানা গেছে, সম্প্রতি চাকরিচ্যুত হয়েছেন ভারপ্রাপ্ত হেড অব নিউজ মঞ্জুরুল হক মঞ্জু, প্রধান বার্তা সম্পাদক শেখ জাহিদুর রহমান, নিউজরুম এডিটর মিজানুর রহমান ও মার্কেটিং হেড সিরাজুম মুনিরা ডালিয়া। অফিসে ঢুকতে বাধা দেয়া হচ্ছে স্টাফ রিপোর্টার সানজিদা রশিদকে। সংবাদ উপস্থাপক তানভীর এলিন ও সাদি মোহাম্মদকে তিন মাস ধরে রাখা হচ্ছে না উপস্থাপনার সূচিতে। এছাড়া অফিসে ঢুকতে বাধা দেয়া হচ্ছে অফিস সহকারী লিটন ও মাহবুব শাকিলকে। স্টাফ রিপোর্টার সানজিদা রশিদ জানান, অফিসে ঢুকতে বাধা দেয়ার ঘটনায় দুদিন আগে তিনি একুশে টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে ডাকযোগে চিঠি দিয়েছেন। প্রতিকার না পেলে তিনিও শ্রম আদালতে মামলা করবেন বলে জানান।