প্রতারণার নতুন কৌশল: মোবাইলে লাখ লাখ টাকার লটারি জয়ের বার্তা

single-news-image

ঢাকার গ্রীন রোডের বাসিন্দা সৈয়দ জাকির হোসেন পেশায় ফটো সাংবাদিক। আজ বুধবার সকাল সোয়া দশটার দিকে তার মোবাইলে একটি টেক্সট বার্তা আসে।

ওই বার্তায় বলা হয় মিস্টার হোসেনের “মোবাইল নাম্বার ২০১৯ পেপসি ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ড্র ইন ইউকে- তে পাঁচ লাখ পাউন্ড বিজয়ী হয়েছে”।

“এখন টাকাটা পেতে হলে তার নাম, বয়স ও ফোন নাম্বার ই-মেইল করে জানাতে হবে।”

আর এই বার্তাটি এসেছে বাংলাদেশেরই একটি মোবাইল নাম্বার থেকে।

ঘণ্টা দুয়েক পর তিনি তার ফেসবুকে এ বিষয়ে স্ট্যাটাস দিলে সেখানেই আরও কয়েকজন মন্তব্য করেন যে তারাও একই ধরনের বার্তা পেয়েছেন।

মিস্টার হোসেন বিবিসি বাংলাকে বলছেন, “এ ধরণের লটারি বিজয়ের খবর দিয়ে আগে অনেক ই-মেইল আসতো। কিন্তু এবার এসএমএস, তাও আবার লোকাল নাম্বার থেকে আসায় খুবই আশ্চর্য হয়েছি।”

“আমি জানি এগুলো প্রতারকদের কাজ। তাই আর গুরুত্ব দেই নাই। তবে ফেসবুকে দিয়েছি যদি ফোন কোম্পানির কারও নজরে আসে তাহলে তারা চাইলে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারে।”

তবে যে নাম্বারটি থেকে বার্তাটি এসেছে সে নাম্বারে কল দিয়ে সেটি বন্ধ পেয়েছেন তিনি। পরে বিবিসি থেকেও ওই নাম্বারে কল দিয়ে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সিলেট শহরে প্রাইভেট কার চালক রফিক আহমেদ বিবিসি বাংলার ফেসবুক পাতায় মন্তব্য করে জানিয়েছিলেন যে তিনিও এ ধরণের প্রতারণামূলক এসএমএস পেয়েছিলেন গত মাসেই। কয়েকমাস আগেও একবার এগুলো পেয়েছিলেন তিনি।

পরে বিবিসি বাংলা থেকে তার সাথে যোগাযোগ করা হলেন তিনি বলেন, “কোকাকোলা কোম্পানি থেকে ৫০ হাজার পাউন্ড জিতেছি বলে এসএমএস করেছিলো আমাকে। দেখেই বুঝেছি ভুয়া।”

সূত্র: রাকিব হাসনাত, বিবিসি বাংলা, ঢাকা