হুনজারা বাঁচে ১২০ বছর

single-news-image

(ছবি: বাবা ৯৫, ছেলে ৭৮ বছর)

ডন ডেস্ক:

পাকিস্তানের একেবারে উত্তরের গিলগিট-বালতিস্তান অঞ্চলে পাহাড়ি উপত্যকা হুনজা, আশপাশ এবং ভারত শাসিত জম্মু-কাশ্মির। আফগান-চীন সীমান্ত ঘেঁষা অনিন্দ্য সুন্দর ওই পাহাড়ি এলাকার উপজাতি জনগোষ্ঠী হুনজা বা ব্রুশো নামে পরিচিত। তারা সবাই ইসমাইলি মুসলমান।

পাকিস্তানে প্রায় ৯০ হাজার হুনজার বসবাস। এলাকাটিতে সারা বছরই থাকে দেশ-বিদেশের পর্যটকের ভিড়। হিমালয়ের পাশের ওই অঞ্চলে প্রাকৃতিক দৃশ্যের পাশাপাশি তাদের মূল আকর্ষণ হুনজারা। কারণ তারা বিশ্বের দীর্ঘজীবী জনগোষ্ঠী। যারা সাধারণত ১২০ বছর বাঁচে। কেউ কেউ ১৫০ বছর পর্যন্ত বাঁচে বলে মিথ বা গল্প রয়েছে। যেখানে পাকিস্তানিদের গড় আয়ু ৬৭ বছর।

১০০ বছর বয়সেও হুনজারা থাকে শক্ত-সামর্থ। আর নারীরা ৬০-৬৫ বছরেও সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম।

হুনজা জনগোষ্ঠী আলোচনায় আসে ১৯৮৪ সালে লন্ডন বিমানবন্দরের একটি ঘটনায়।সৈয়দ আব্দুল মবুদু নামে এক ব্যক্তির পাসপোর্টে জন্ম তারিখ ১৮৩২ দেখে চমকে যান ইমিগ্রেশন অফিসার। তিনি বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না মানুষ এতোদিন বাঁচে!

কিন্তু এর রহস্য কী? বিশেষজ্ঞরা বলছেন খাদ্যাভ্যাসই এর মূল কারণ। ওই জনগোষ্ঠীর লোকজন দিনে দুই বেলা খায়। সকালে ভারি নাস্তা আর সূর্যাস্তের পরপরই রাতের খাবার। তাতে থাকে প্রধানত ফল, শাক-সবজি, গম, দুধ, চিজ। সবই নিজেদের উৎপাদিত এবং কেমিকেলমুক্ত।

টেনশন, মানসিক বিষাদ আর নেতিবাচক চিন্তা হুনজাদের কাছে একেবারেই অপরিচিত। অনেকটা শিশুর মতোই তাদের ভাবনা-চিন্তা।

গবেষণায় দেখা গেছে, হুনজারা প্রচুর এপ্রিকট বা খুবানি খেয়ে থাকে। কমলার মতো এই ফলে রয়েছে অতিমাত্রায় ভিটামিন বি-১৭ সমৃদ্ধ আমিগডালিন। এটি টিউমার ও ক্যান্সারকে দূরে রাখে।

এই জনগোষ্ঠীর মানুষ কখনো অলস সময় কাটায় না। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্তই কাজ করে।প্রচুর হাঁটাহাঁটি ও খেলাধুলা করে তারা। কিন্তু খায় কম।

বছরে দুই থেকে চার মাস হুনজারা তাদের নিয়মিত খাবার বন্ধ রেখে শুধু শুকনো এপ্রিকটের শরবত খায়। এই সময় পাকা এপ্রিকট মিলে না। বিজ্ঞানীরা এটাকেও দীর্ঘ জীবনের একটি কারণ মনে করছে।

তারা পাহাড় থেকে নেমে আসা বরফগলা পানি পান করে। গোসলও ওই পানিতে। তুমরু পাতা দিয়ে তৈরি হারবাল বরফগলা পানিতে ‍ফুটিয়ে চায়ের মতো খাওয়ার কারণে, তাদের ত্বক থাকে খুবই সতেজ।

হুনজাদের মধ্যে শিক্ষার হার ৯০ ভাগের বেশি। তারা নিজেদের সম্রাট আলেকজান্ডার ও তার সেনাবাহিনীর বংশধর মনে করে। তাদের দাবি, আলেকজান্ডার ওই উপত্যকা জয়ের পর অসুস্থ সৈনিকদের ফিরিয়ে নিতে পারেননি। ওই সেনাদেরই উত্তরসূরি হুনজা জনগোষ্ঠী।

Source and pics: shughal.com, daily.bhaskar.com, lifeadvancer.com