কলাপাড়ায় তিন ফসলি জমি আধিগ্রহণের প্রতিবাদ

single-news-image

(আপলোড: ১:০৫, জুলাই ৪, ২০১৮)

ফেরদৌস হাওলাদার, কুয়াকাটা প্রতিনিধি:

তিন ফসলি জমি অধিগ্রহণের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে পটুয়াখালীর কলাপাড়ার ধানখালী ইউনিয়নের মানুষ। মঙ্গলবার গিলাতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এই আয়োজন করা হয়।

প্রায় এক ঘণ্টার এ মানববন্ধনে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. আবদুল লতিফ সরদার বলেন- তিন ফসলি জমিতে কোনো বিদ্যুৎকেন্দ্র করা হবে না- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন নির্দেশনাকে উপেক্ষা করে আরপিসিএল (রুরাল পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড) ধানখালীর তিন ফসলি জমি অধিগ্রহণ করে বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে মরিয়া হয়ে ওঠেছে।

আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে তারা জমির মালিকদের ভয়ভীতির মাধ্যমে জমি দখলে নেয়ার চেষ্টা করছে।

স্কুলশিক্ষক লুৎফর রহমান বলেন-  ‘সরকারের উন্নয়কাজের প্রয়োজনে আমরা তিন ফসলি জমি দেব। কিন্তু কোনো বেসরকারি কোম্পানিকে জমি দেয়া হবে না’।

একই বক্তব্য তুলে ধরে কৃষক মাসুম বলেন- ‘বাপ-দাদার পেশা কৃষি কাজ করে জীবিকা চালাই। সারা বছর মাথার ঘাম পায়ে ফেলে এই মাটিতেই সোনা উৎপাদন করি। জীবিকার অনিশ্চয়তা নিয়ে পূর্ব পুরুষের জমি ছেড়ে দেব না’।

কৃষক নয়ন বলেন-  ‘এই জমি অধিগ্রহণ নিয়ে আরপিসিএল এর বিরুদ্ধে পটুয়াখালী জজ আদালতে মামলা চলছে। আদালত ভূমিঅধিগ্রহণকারী কোম্পানির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। কিন্তু আরপিসিএল স্থানীয় প্রশাসন ব্যবহার করে, মামলা-হামলার হুমকি দিয়ে জমি দখল করতে চায়’।

উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের ১৩২০ মেগাওয়াট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের পাশেই গিলাবাড়িয়া এলাকায় ২০০ একর আবাদি জমি অধিগ্রহণ করার প্রক্রিয়া চলছে। এতে প্রায় সাড়ে তিনশ পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে জানায় স্থানীয়রা।