নিবাস বডুয়ার কবিতা: আজো উত্তর মেলেনি

single-news-image
(আপলোড: ২৩:৩৩, জুন ৩০, ২০১৮)

আজো উত্তর মেলেনি

-------------------------

নিবাস বড়ুয়া

----------------
অনেকদিন পর তোমার সাথে দেখা হলো

ভেবেছিলাম তোমার অস্তিত্বে বিলীন হবো 

শরীরের শিরা উপশিরায় মিশে গিয়ে 

রক্তকণিকার প্রতিটি কোষের 

রন্ধ্রে রন্ধ্রে বিচরণ করবো।

তুমি এলে, দেখা হলো 

তবুও কোথায় যেন যোজন যোজন ফারাক

একদিনতো উপলব্ধি করেছি একা একা

জীবনকে,সমাজকে কতোবার! 

দেখেছি কীভাবে প্রাণ তার চোখকে খুঁজে

আর প্রতিহিংসার জন্ম দেয়

মানুষ নামীয় নির্দয় জীবটির মনের অতলান্তে,

মুহূর্তেই হিংস্র হয়ে উঠতে পারে

যার পাশবীয় সত্বা।

সুন্দরতার মাঝে লুকিয়ে থাকে

যেন এক বীভৎস রূপ,

হিংস্র পশুসত্বাকেও যা হার মানায়

নিজেরা নিজেদের শরীরের মাংস খেতে

যেন উদগ্রীব হয়ে উঠে

ঝাঁপিয়ে পড়ে সহাস্য বদনে

অন্যের ঘাড়ে।

দেখতে দেখতে নিজের চোখের আলোও

যেন ঝাপসা হয়ে উঠে

হেঁটেছি পথে পথে

খুঁজেছি কৃষ্ণপক্ষের ঘোর অমানিশা শেষে

ভরা পূর্ণিমার চাঁদকে

কিন্তু তবুও পাইনি,পাবোও না হয়তো;

এই কি সভ্যতার উৎকর্ষতা

নাকি এর অপব্যবহার!

আজো খুঁজে যাই,উত্তর মেলে না

খুঁজতে থাকবো আর কতকাল

তাও হয়তো জানি না।

তুমি এসেছো অথচ তোমার অস্তিত্ব

নাড়া দেয় না তাই আমার হৃদপিণ্ডকে;

জগদ্দল পাথরের মতো চেপে আছে যেন

জানি না বরফের মতো গলে গলে

কতোদিনে তরল হবে!

এরই মাঝে খুঁজতে খুঁজতে পেয়েছি তোমাকে

তবে সমাজের বীভৎসতাকে নিয়ে

এখনও ভেবে চলেছি--ভাবতেই হবে

উপড়ে ফেলতে হবে এর শেকড়কে

যা প্রোথিত আছে সমাজের

অনেক গভীরে।