স্বল্প শিক্ষিত নারীর চোখ ধাঁধানো শিল্প

single-news-image

আহসান উল্লাহ, সাভার:

থোকায়-থোকায় নানান রঙের সুতা। সঙ্গে সুঁই। ফুটিয়ে তোলা হচ্ছে একের পর এক শিল্পকর্ম। ছবি দেখলে মনে হবে, নিশ্চয়ই এসব অতি প্রশিক্ষিত ও অভিজাত শিল্পীর কাজ। প্রকৃতপক্ষে সাভার ও কেরানীগঞ্জের অল্প শিক্ষিত কিছু নারী এই কারুশিল্পের পুরোধা।

সাভারের ভাকুর্তা ইউনিয়নের  ভাড়ালিয়া  ও চাপড়া, কেরানীগঞ্জের  কলমারচর, ও  কলাতিয়া  গ্রামে ১২শ নারীর হাতে সৃষ্টি হয় অবিশ্বাস্য সব কাজ।

রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেটের ব্যবসায়ীরা তাদের দিয়ে করিয়ে নেয় নজরকাড়া এই সুচিকাজ। পাশাপাশি রপ্তানি হয় সংযুক্ত আরব আমিরাতে।

সুঁই-সুতার এই কারুকাজ করে সংসারের হাল ধরেছেন এসব গ্রামের অনেক নারী। তাদেরই একজন মুক্তা পারভীন। তিনি কারুশিল্প সমিতির সভাপতি। মুক্তা জানান-এই কাজে লাভ বেশি হওয়ায়,  নারীদের পাশাপাশি পুরুষরাও অংশ নিচ্ছে।

ঈদ-পূজা ও বিভিন্ন উৎসবে নাওয়া-খাওয়ার সুযোগ থাকে না শিল্পীদের। পাঞ্জাবি, ফতুয়া, শাড়িসহ অনেক পোশাকে  থাকে এই এলাকার নারীদের হাতের ছোঁয়া।