ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিয়ে-প্রতারণার অভিযোগ

single-news-image

নুর উদ্দিন মুরাদনোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল বাহার চৌধুরীর বিরুদ্ধে প্রতারণা করে বিয়ের অভিযোগ ওঠেছে। বিয়ের দুই মাসের মধ্যে এককভাবে তালাক দিয়ে তিনি বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করেছেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী পরিচয় দেয়া মাহমুদা সুলতানা।

শুক্রবার নোয়াখালী প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন মাহমুদা সুলতানা। তিনি দাবি করেন, চেয়ারম্যান ইকবাল বাহার চৌধুরী তাকে আপস করে মামলা তুলে নেয়ার হুমকি দিচ্ছেন। এতে তার পরিবারের লোকজন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

লিখিত বক্তব্যে মাহমুদা সুলতানা বলেন- ‘ইকবাল বাহার আমার বাবার আর্থিক অসচ্ছলতার সুযোগে, প্রথম স্ত্রীর কথা গোপন রেখে চার মাসে আগে ১০ লাখ টাকা দেনমোহরে আমাকে বিয়ে করেন। কিন্তু আমাকে তার বাড়িতে তুলে নেননি। এ বিষয়ে চাপ দিলে আমাকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়। একপর্যায়ে মাত্র দুই মাসের মধ্যে তিনি আমাকে তালাক দেন। দুইজন ইউপি সদস্যের মাধ্যমে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন ইকবাল বাহার। এতে রাজি না হওয়ায়, আমাকে ও আমার পরিবারকে হুমকি দেয়া হচ্ছে।এ বিষয়ে আমি আদালতের দারস্থ হয়েছি’।

অভিযোগের বিষয়ে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে, ইকবাল বাহার চৌধুরী ঢাকা ডনের কাছে বিয়ের কথা স্বীকার করেন। তবে এর বেশি কিছু তিনি বলতে রাজি হননি।