মার্কিন পতাকার ডিজাইনার স্কুলছাত্র

single-news-image

 

ডন ডেস্ক

১৯৫৮ সাল। ওহাইয়োর লেংকাস্টার হাইস্কুল।

রবার্ট জি হেফটের ইতিহাস শিক্ষক ক্লাসের সবাইকে নিজেদের কিছু তৈরি করে দেখাতে একটি এসাইনমেন্ট দিলেন।

রবার্ট জি হেফট (বব হেফট নামে পরিচিত ছিলেন) সিদ্ধান্ত নিলেন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য একটি পতাকা তৈরির। তখন দেশটির অঙ্গরাজ্য ছিল ৪৮টি এবং পতাকা ছিল ৪৮ তারকা খচিত।

সেসময় জোর আলোচনা চলছিল- আলাস্কা ও হাওয়াই অঙ্গরাজ্যের মর্যাদা পাচ্ছে। ১৭ বছরের বব সিদ্ধান্ত নিলেন ৫০ তারকা খচিত পতাকা তৈরির। ভাবনা অনুযায়ী কাজ। ৫০টি স্টার দিয়ে তৈরি করলেন একটি পতাকা। এবং উৎসাহের সঙ্গে সেটি শিক্ষকের ডেস্কে জমা দিলেন।

রবার্ট জি হেফট

কিন্তু ববের ইতিহাস শিক্ষকের পতাকাটি পছন্দ হয়নি। এবং ভর্ৎসনা করলেন এই বলে যে, তুমি জানই না যুক্তরাষ্ট্রের কয়টি অঙ্গরাজ্য। তাকে দেয়া হলো বি-মাইনাস গ্রেড।

বব বি-মাইনাসের প্রতিবাদ করলেন। বললেন- নতুন পতাকা এমনভাবে করতে হয়, যাতে কেউ বলতে না পারে যে, ডিজাইনে পরিবর্তন আনা হয়েছে। সেজন্য পাঁচ সারিতে ছয়টি করে আর চার সারিতে পাঁচটি করে তারকা দেয়া হয়েছে। যা তার কাছে একেবারে সঠিক মনে হয়েছে।

শিক্ষক একটু রেগেই বললেন, যদি বি-মাইনাস গ্রেডিং তোমার পছন্দ না হয়, তাহলে এটি ওয়াশিংটন থেকে অনুমোদন করিয়ে আনো। তারপর তোমার গ্রেডিং পরিবর্তন করে দেব।

বব চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করলেন। পরের দুই বছর হোয়াইট হাউজে চিঠি ও ফোন করে যোগযোগের চেষ্টা করলেন। নিজ রাজ্য ওহাইয়োর প্রতিনিধি ওয়াল্টার এইচ মোয়েলারের সাথে যোগাযোগ করলে, তিনিও ববের ডিজাইন সমর্থন করলেন।

ওই সময় হঠাৎ আলাস্কা অঙ্গরাজ্যের মর্যাদা পেয়ে যায় এবং ৪৯ তারকার পতাকা তাৎক্ষণিকভাবে ওড়ানো হয়। পরে যুক্ত হয় হাওয়াই।

একদিন বব হোয়াইট হাউজের ডাক পেলেন। প্রেসিডেন্ট আইজেনহাওয়ার তাকে জানালেন যে, এক হাজারের বেশি ডিজাইন থেকে তার পতাকাটি চূড়ান্ত করা হয়েছে।

১৯৬০ সালের ৪ জুলাই। বব হেফট হোয়াইট হাউজে গেলেন তার ডিজাইন করা নতুন পতাকা দেখতে, যা এরই মধ্যে অফিসিয়ান পতাকা হিসেবে ব্যবহার শুরু হয়ে গেছে।

পরে অবশ্য স্কুলের ইতিহাস শিক্ষক বব হেফটের ডিজাইনের গ্রেড উন্নীত করে ‘এ’ দিলেন।

কিন্তু তিনি থামলেন না। রাজ্যের প্রতিনিধির কাছে ৫১ তারকার আরেকটি ডিজাইন জমা দিলেন। ওয়াশিংটন ডিসি অথবা পুয়ের্ত রিকো যদি কখনো অঙ্গরাজ্যের মর্যাদা পায়, তার জন্য। বব হেফটই একমাত্র ব্যক্তি যিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দুটি পতাকার ডিজাইন করে গেছেন। ২০০৯ সালে তিনি মারা যান। আর অঙ্গরাজ্যের সংখ্যাও ৫০টিই আছে।

সূত্র: storycorps.org, Readers’ Digest